30 C
Dhaka
Thursday, September 29, 2022

Buy now

আইপিও প্রক্রিয়ায় আবারো পরিবর্তন এনেছে বিএসইসি

আইপিও প্রক্রিয়ায় আবারো পরিবর্তন এনেছে বিএসইসি

এপ্রিল মাসে চালু হওয়া প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) বরাদ্দ প্রক্রিয়ায় কিছু পরিবর্তন এনেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। এখন থেকে, প্রত্যেক বিনিয়োগকারী ১০ হাজার টাকা দিয়ে নতুন কোম্পানির আইপিওতে আবেদন করতে পারবেন। এর বেশি কেউ দিতে পারবে না।

এপ্রিলে কার্যকর হওয়া নিয়মানুসারে, একজন বিনিয়োগকারী একটি আইপিওর জন্য বিও অ্যাকাউন্টে সর্বনিম্ন ১০ হাজার টাকা জমা দিতে পারতেন। এছাড়াও ২০ হাজার, ৩০ হাজার, ৪০ হাজার এবং সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকার আবেদন করতে পারতেন। এই সাবস্ক্রিপশনের উপর ভিত্তি করে, প্রতিটি আবেদনকারীকে একটি সমানুপাতিক ভাগ বরাদ্দ করা হত। কিন্তু এ প্রক্রিয়া নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা সৃষ্টি হওয়ায় আইনে পরিবর্তন আনা হয়েছে।

বিএসইসির মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক রেজাউল করিম সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, সামগ্রিক দিক বিবেচনা করে আইপিও আবেদনের জন্য চাঁদা ১০ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এর জন্য নতুন কোন সার্কুলার জারি করা হবে না। কারণ আইপিও আইনে ১০ হাজার টাকার আইন রয়েছে। আইপিও সম্মতির চিঠির ক্ষেত্রে কমিশন চাঁদার পরিমাণ ঠিক করবে।

এপ্রিল মাসে চালু করার পর, সোনালী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের আইপিও দিয়ে নতুন সিস্টেম শুরু হয়। যা ১০ টাকা মূল্যের ১.৯ কোটি শেয়ার ইস্যু করে পুঁজিবাজার থেকে ১৯ কোটি টাকা সংগ্রহ করে। ১৯ কোটি টাকার আইপিও শেয়ারের জন্য বিনিয়োগকারীরা ৩৬.৪৫ গুণ আবেদন পেয়েছেন।

এই কোম্পানিতে ১০ হাজার টাকা দিয়ে অবদানকারী বিনিয়োগকারীরা ১৭টি শেয়ার পেয়েছেন। এভাবে, ২০ হাজার টাকায় ৩৪টি শেয়ার, ৩০ হাজার টাকায় ৫১ টি শেয়ার, ৪০ টাকায় ৬৮ টি শেয়ার এবং ৫০ হাজার টাকায় ৮৫ টি শেয়ার বরাদ্দ করা হয়েছে। এটি বিনিয়োগকারীদের মধ্যে ব্যাপক সমালোচনার জন্ম দেয়।

একটি ব্রোকারেজ হাউজের একজন শীর্ষ কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, লটারি ব্যবস্থা ভালোভাবেই সম্পন্ন হয়েছে। যাইহোক, নতুন সিস্টেমে মাসে ১০,০০০ টাকা জমা দিয়ে ১ Tk০ টাকা মূল্যের শেয়ার পাওয়া খুবই হাস্যকর। যারা বেশি অর্থ অবদান রাখছে তারা বেশি শেয়ার পাচ্ছে। আইপিওতে ইতিমধ্যেই কোটা ব্যবস্থা আছে। এই ধরনের বৈষম্য বিনিয়োগকারীদের জন্য ভাল কাজ করেনি। তাই বিএসইসির নতুন সিদ্ধান্ত ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে, যোগ করেন তিনি।

নতুন পদ্ধতির অধীনে আইপিওর জন্য আবেদন করার জন্য আবেদনকারীর বিও অ্যাকাউন্টে ন্যূনতম ২০ হাজার টাকার শেয়ার থাকতে হবে। বিএসইসি প্রধানত শেয়ারবাজারে আইপিও ব্যবসায়ীদের দৌরাত্ম্য দূর করার জন্য এমন বিধান আরোপ করেছে।

সম্পর্কিত আরো খবর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

অনুস্মরণ করুন

5,535FansLike
1,200FollowersFollow
2,000SubscribersSubscribe
- Advertisement -spot_img

সর্বশেষ নিউজ